মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ০৬, ২০০৭

জনম জনম গেল-

খানিকটা বড়ো হবার পরে, যখন তুলনামূলক বেশি মনোযোগ দিয়ে নজরুল গীতি শুনলাম, তখন মনে হলো, মনের বয়েস একটু বেশি না হলে আসলে নজরুলের মজাটা টের পাওয়া যায় না। ভাষার অপরূপ প্রয়োগ আর সেই সাথে অসাধারণ সুরের যে মিশেল, সেটাকে খুব সংক্ষেপে প্রকাশ করতে চাইলে একটা শব্দই বলতে হবে, “ম্যাচিওরড!''

---------------
পদ্মার ঢেউ রে,
মোর শূণ্য হৃদয় পদ্ম নিয়ে যা, যা রে।
পদ্মার ঢেউ রে...।
এই পদ্মে ছিলো রে যার রাঙা পা,
আমি হারায়েছি তারে।

মোর পরাণও বধূ নাই,
পদ্মে তাই মধু নাই, নাই রে।
বাতাস কাঁদে বাইরে...,
সে সুগন্ধ নাই রে...।

মোর রূপের সরসীতে আনন্দ মৌমাছি, নাহি ঝংকারে,
পদ্মার ঢেউ রে, মোর শূন্য হৃদয় পদ্ম নিয়ে যা, যা রে।
------------------------

এই মূহুর্তে বেশ কিছু গান ঘুরে ফিরে শুনছি। তার মধ্যে দু'টা হলো আমার সবচে' পছন্দের নজরুল গীতি।
ফিরোজা বেগমের গলায় গাওয়া পদ্মার ঢেউরে ভীষন ভালো লাগে। তবে খায়রুল আনাম শাকিলের গলার গানটিও দূর্দান্ত। একুশে টিভিতে যখন প্রথম শাকিলের গলায় গানটি শুনি, তখুনি খুব ভালো লেগেছিলো।
মজার ব্যাপার, তখনো আমি জানতাম না যে এটা নজরুল গীতি। পরে যখন শুনলাম, ভীষন অবাক হয়েছিলাম, আর ভেবেছিলাম, এত আগেও এত আধুনিক প্রকাশ কী করে সম্ভব!
----------------------------

খুব প্রিয় অন্য গানটিও বেশি শুনি ফিরোজা বেগমের গলায়।

জনম জনম গেলো, আশা পথ চাহি,
মরু মুসাফির চলি, পার নাহি নাহি।
বরষও পরে বরষ, আসে যায় ফিরে,
পিপাসা মিটায়ে চলি, নয়নেরও তীরে,
জানি না আলেয়া শিখা, নিরাশার মরিচীকা,
ডাকে মরু প্রাণনিকা, শত গীত গাহি।
জনম জনম গেলো, আশা পথ চাহি।


ঠিক এরকম একটি গানের জন্যে আসলেই জনম জনম পার করে দেয়া যায়!

যারা এখুনি শুনতে চান গানটি, তাদের জন্যে-

জনম জনম গেলো


1 টি মন্তব্য:

ওডিসিউস বলেছেন...

তোমাকে খুব বড় করে একটা ধন্যবাদ জানানোর জন্যে কমেন্ট করছি ।

নজরুল সংগীত খুব একটা খেয়াল করে শোনা হয়নি কখনো ।
তোমার এই পোস্ট পড়ার পর কয়েকদিন ধরে নন-স্টপ নজরুল এ ডুবে আছি ।

এই মুহর্তে বাজছে .. রুমঝুম ঝুমঝুম রুমঝুম ঝুম....আশা ভোসলে র কণ্ঠে ..

ধন্যবাদ ।