মঙ্গলবার, অক্টোবর ৩১, ২০০৬

আমার দেশ

ইদানীং শিউরে ওঠাও ভুলে গেছি।
ঠান্ডা মাথায় ভেবে দেখার চেষ্টা করছি আসলে আমাদের দেশটায় কি হচ্ছে, কোন কূলকিনারা পাচ্ছি না। এরকম সহিংস্রতার মূলে আসলে কি আছে? যারা এভাবে ভাংচুর চালাচ্ছে, পিটিয়ে মানুষ মেরে ফেলছে- তাদের মানসিক গঠনটা দেখতে ইচ্ছে করছে। পত্রিকায় ছাপানো ছবিতে তাদের হাসিমুখ দেখে গা কেঁপে ওঠে, ওরকম আনন্দিত চেহারা নিয়ে কেমন করে মানুষ আরেকটা মানুষকে মেরে ফেলে?
মানুষের অসহিষ্ণুতা চলে গেছে চরম মাত্রায়। প্রাচীনকালের পৃথিবীতে নাকি গোত্রে গোত্রে মারামারি হতো, বড় নৃশংস সেইসব গল্প।
এখন গোত্র নেই, আমরা নিজেদের ভাগ করে ফেলেছি রাজনৈতিক দলে। দেশের রাস্তায় এখন যেসব দু'পেয়ে প্রাণীরা ঘুরে বেড়ায়, তারা নির্ঘাৎ কোন মানুষ নয়। তারা অতি অবশ্যই বিএনপি, আওয়ামি লীগ, জামাত বা জাতীয়-পার্টির ল্যাবে তৈরি করা বিশেষ প্রজাতির কোন প্রাণী। যাদের জিনেটিক কোডে খোদাই করে দেয়া হয়েছে অন্য দলের প্রাণী-হত্যার নির্দেশ!

ভীষন দুঃসময় কাটাচ্ছে এখন আমার প্রিয় জন্মভূমি। আমরা এখন তার সন্তানদের মনুষ্যত্ববোধের মাগফেরাত কামনা করার জন্যে হাত তুলে মোনাজাত করতে পারি।

২টি মন্তব্য:

কৌশিক আহমেদ বলেছেন...

আপনার সাথে দোয়া করছি যেন পার্টি ইজম থেকে দেশের মানুষ মুক্তি পায়।

নিঘাত সুলতানা তিথি বলেছেন...

ঈশ্বর, সত্যিকারের মানুষ করে দাও মানুষগুলোকে।