বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ০৭, ২০০৬

মিরুজিন নদীটির তীরে-



কোন কোন মানুষ থাকেন পাহাড়ের মতন।

সাগর বয়ে যায়, দিনান্তে ঘরে ফেরে পাখি, বাতাসের সাথে অবিচল সখ্যতায় কখনো কখনো গা ঝাড়া দিয়ে ওঠে আজন্ম স্থির থাকবার প্রতিজ্ঞাবদ্ধ গাছেরা। শুধু পাহাড়ই যেন একঠায় দাঁড়িয়ে থাকে, আকাশের গায়ে হেলান দিয়ে |

সেই পাহাড়ের পাশ দিয়ে পায়ে হাঁটা রাস্তাটুকু প্রতিদিন নিশ্চিত নির্ভরতায় পার হয়ে যাই হেঁটে। ছায়াটুকু গায়ে মেখে নিই, দমকা হাওয়ায় নির্ভয়ে পথ চলার সুবিধাটুকুও।

তবু কোন এক দুঃস্বপ্নের রাতে ছোট কুটীরে জ্বলতে থাকা মাটির পিদিম নিবে যায় ঝড়ো বাতাসে। শঙ্কায় কেঁপে ওঠে মন। এবং সত্যিই চোখ মেলে দেখে, পাহাড়টা নেই আর সেখানে।

বুকের কাছ থেকে বয়ে চলে নোনা নদীর জল।
পাবে না জেনেও বাতাসে কান পাতে হৃদয়- যদি ভেসে আসে তবু ইলেক্ট্রার গান !
---------------------

প্রিয় কবি, আপনাকে বিদায় বলবার স্পর্ধা আমার নেই। আপনি শিখিয়েছিলেন, স্বাধীনতা মানে রবি ঠাকুরের অজর কবিতা, অবিনাশী গান।
পৃথিবী জানুক, আমাদের কাছে কবিতা মানে শামসুর রাহমান

--------------
বাংলালাইভে মুল লিংক


কোন মন্তব্য নেই: